সকালেই বন্দুকের গুলির শব্দে কেঁপে উঠল মল্লভূম বিষ্ণুপুর – নিজের গুলিতেই প্রাণ হারালেন মল্ল রাজা ।

0
17

নরেশ ভকত :: ২৪ ঘন্টা লাইভ :: ১লা জুলাই :: বাঁকুড়াঃ:: মন্দির নগরী বিষ্ণুপুর ঐতিহ্যময়ী বিষ্ণুপুর। মন্দিরের গায়ে আঁকা আছে বিষ্ণুপুরের ঐতিহ্য। মন্দির নগরী বিষ্ণুপুর মল্ল রাজাদের রাজধানী হিসেবে বিখ্যাত গোটা বিশ্ব জুড়ে ।

বিষ্ণুপুর সকালেই কেঁপে ওঠে গুলির আওয়াজে। ঘটনাটি ঘটে বিষ্ণুপুরের রাজদরবার এলাকার ঘটনা। রাজ পরিবারের সদস্যের মৃত্যুর খবরে জেরে সারা বিষ্ণুপুরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়।পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বিষ্ণুপুর রাজপরিবারের সদস্য সলিল সিংহ ঠাকুর সকাল 8 টা নাগাদ একটি এক নলা বন্দুক দিয়ে গলায় বন্দুকের নল নিজের গলায় লাগিয়ে নিজে গুলি চালায় এবং তিনি মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়েন । সারা বাড়ির মেজে রক্তাক্ত হয়ে আছে এবং তাঁর সারা শরীর রক্তাক্ত অবস্থায় দেখা যায়।

খবর পেয়ে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ আধিকারিকরা । পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে একটি একনলা বন্দুক উদ্ধার করেন এবং গুলিবিদ্ধ দেহ উদ্ধার করে বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতাল ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে । এই ঘটনায় পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া ।
পারিবারিক অশান্তির জের নাকি মানসিক অবসাদের জেরে তিনি এই ধরনের মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটিয়েছেন সেই প্রশ্নই এখন চারিদিকে ঘুরপাক খাচ্ছে । পুরো ঘটনা তদন্ত শুরু করেছে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ ।

সলিল সিংহ ঠাকুরের এক বন্ধু কনক জ্যোতি দাস বলেন , গত কালও আমার সঙ্গে দেখা হয়েছে তবে তিনি বেশ কয়েকদিন ধরে হাঁটুর যন্ত্রণায় ভুগছিলেন এবং তার থেকে একটা মানসিক অবসাদে তৈরি হয়েছিল । তবে ঠিক কী কারণে তিনি এমন ঘটনা ঘটাল তা বুঝে উঠতে পারছেন না তিনি । স্থানীয় কাউন্সিলর শ্রীকান্ত ব্যানার্জি বলেন , আমি খবর পেয়ে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছাই এবং থানার আইসিকে ফোন করলে ঘটনাস্থলে পুলিশ আধিকারিকরা আসেন । তবে তিনিও বুঝে উঠতে পারছেন না ঠিক কি কারণে তার মৃত্যু হল ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here