হুকুম চাঁদ ননসেন্স, মৃত্যুর পরেও দিলো না অ্যাম্বুলেন্স ।

0
43

২৪ ঘণ্টা লাইভ সংবাদাতা / রাজিব গুপ্তা/ ব্যারাকপুর / ৭ মে ২০২২: আবার হাজিনগরে আমানিভক দৃশ্য নজরে পড়লো হুকুমচাঁদ জুট মিলের ।

খবর অনুযা়ী পূর্ণিয়া থেকে পাট নিয়ে ভোর বেলা প্রায় ৩ তে সময় মিলের ৬ নম্বর গেটের সামনে এসে পৌঁছয় WB23B3704 নম্বরের একটি মাল বোঝাই গাড়ি ।

Mahavir Computer

তবে সকাল হলেই মিল খুলবে, তাই অপেক্ষায় বাহিরেই গাড়ি পার্কিং করে দাড়ালেন চালক ও খালাসী ।

Add : Bright Coaching

কিন্তু ভোর বেলা অফিস খুললে যখন বাকি সমস্ত গাড়ি মিলে ঢোকার জন্য বেরিয়ে পড়লেও ঘুম থেকে উঠলেন না এই গাড়ির চালক মদন যাদব । সেখানে আভাস জে মৃত্যু ঘটেছে মদন বাবুর ।

Add Crystal Inn

গাড়ি তে থাকা খালাসী অনিল কুমার জানালেন জে তার বাড়ি উত্তর প্রদেশের বলিয়া তে, প্রায়ই অসুস্থ থাকতেন মদন যাদব, কিন্তু পরিবারের পেট চালাতে থাকতে হতো কাজে। পেট খারাপ থাকায় গতকাল রাতে তিনি কিছু ক্ষেত পারেন নি । শুধু মাত্র গ্যাসের ঔষধ নিয়েছিলেন তিনি ।

Advertisement

কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় যে ভোর ৭:৪৫ পর্যন্ত মৃত দেহ পড়ে থাকলো গাড়ির মধ্যেই, কিন্তু পার্থিব শরীর গাড়ি তে পড়ে থাকলেও কোনো রকম সহযোগিতা করতে অনিচ্ছুক রইলো হুকুম চাঁদ মিল প্রশাসন ।

Add Panjabi Gharana

তারা কোনো ভাবেই করলেন না সহযোগিতা ।

খবর পেয়ে উপস্থিত হলেন স্থানীয় পার্ষদ অশোক যাদব, গারিফা আউট পোস্টের আধিকারিক ভিম পাত্র ও পুলিশ কর্তা উত্তম কুমার রায় ।

BanglarGarbHLR

শেষ মেশ পুলিশ এর অনুরোধে ও পার্ষদ এর সহযোগিতায় ডেকে আনা হোলো অ্যাম্বুলেন্স ।

নিয়ম অনুযায়ী হাসপাতালে পাঠানো হোলো মৃত দেহ ।

এ ভাবেই  গাড়ির মধ্যে পড়ে ছিল মৃত দেহ

কিন্তু প্রশ্ন হলো জে এই ভাবে পড়ে থাকলো একটি মৃত দেহ, তাকে একটি অ্যাম্বুলেন্স ও করে দিলো না মিল প্রশাসন ।

তাদের কোনো মানবিক দৃষ্টিকোণ কি নেই, মদন বাবু কি উত্তর প্রদেশের বাসিন্দা বলেই তার অবহেলা না কি সে গরিব বলে তার প্রতি কোনো সহানুভুতি দেখলেন না মিল কতৃপক্ষ ?

তাদের কাছে কি শুধু টাকা টাই মূল্যবান,

মানুষের জীবন নয় ?

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here